التصنيف: الأعلام .

عمرو بن حبيب بن عمرو بن عمير الثقفي

English ‘Amr ibn Habīb ibn ‘Amr ibn ‘Umayr ath-Thaqafi
اردو عمرو بن حبیب بن عمرو بن عمیر ثقفی
বাংলা ভাষা আমর ইবন হাবীব ইবন উমাইর আস-সাকাফী
हिन्दी अम्र बिन हबीब बिन अम्र बिन उमैर सक़फ़ी
తెలుగు అమ్ర్ బిన్ హబీబ్ బిన్ అమ్ర్ బిన్ ఉమైర్ అస్సఖఫీ

أبو مِحْجَن الثقفي -رضي الله عنه-

English Abu Mihjan ath-Thaqafi (may Allah be pleased with him)
اردو ابو محجن ثقفی -رضی اللہ عنہ-
বাংলা ভাষা আবূ মিহজান আস-সাকাফী রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু
हिन्दी अबू मिहजन सक़फ़ी -रज़ियल्लाहु अन्हु-
తెలుగు అబూ మిహ్జన్ అస్సఖఫీ రజియల్లాహు అన్హు.

عمرو بن حبيب بن عمرو بن عمير بن عوف أبو مِحجن الثقفي، صحابي جليل، أحد الأبطال الشعراء الكرماء في الجاهلية والإسلام، أسلم سنة 9، وروى عدة أحاديث، وكان منهمكًا في شرب الخمر، فحده عمر مرارًا، ثم نفاه إلى جزيرة بالبحر، فهرب، ولحق بسعد بن أبي وقاص وهو بالقادسية يحارب الفرس، فكتب إليه عمر أن يحبسه، فحبسه سعد عنده، واشتد القتال في أحد أيام القادسية، فالتمس أبو محجن من سلمى امرأة سعد أن تحل قيده، وعاهدها أن يعود إلى القيد إن سَلِم، وأنشد أبياتًا في ذلك، فخلت سبيله، فقاتل قتالًا عجيبًا، ورجع بعد المعركة إلى قيده وسجنه ، فحدثت سلمى سعدًا بخبره، فأطلقه وقال له: لن أحدك أبدا. فقال أبو محجن: وأنا والله لا أشربها أبدًا. فلم يشربها بعد ذلك، وتوفي بأذربيجان أو بجرجان عام 30.

English He is ‘Amr ibn Habīb ibn ‘Amr ibn ‘Umayr ibn ‘Awf, Abu Mihjan ath-Thaqafi. He was an honorable Companion and one of the heroic and generous poets both in the pre-Islamic era and in Islam. He embraced Islam in 9 AH and narrated several Hadīths. He was totally indulged in drinking; hence, ‘Umar repeatedly applied the Hadd (corporal punishment prescribed by Allah) on him, then, he banished him to an island in the sea. However, Abu Mihjan escaped and joined Sa‘d ibn Abi Waqqās in Al-Qādisiyyah while the latter was fighting the Persians. ‘Umar, thus, wrote to Sa‘d ordering him to lock him up and Sa‘d locked him up. One day during the Battle of Al-Qādisiyyah, the fight grew fierce; so, Abu Mihjan asked Salma, Sa‘d's wife, to untie him and promised to return if he survived. He recited poetic verses related to this situation; thus, Salma set him free. He showed extreme courage in fighting, then, after the battle he returned to his prison. Salma informed Sa‘d of what had taken place and on hearing that, Sa‘d set him free and said: "I shall never apply Hadd on you." Thereupon, Abu Mihjan replied: "And by Allah, I shall never drink it (alcohol) again." He never drank it again until he died in Azerbaijan or Gorgan in 30 AH.
اردو عمرو بن حبیب بن عمرو بن عمیر بن عوف ثقفی ایک بڑے صحابی ہیں، کنیت ابو محجن تھی، جاہلیت اور اسلام میں ایک بڑے بہادر، شاعر اور سخی کی حیثیت سے زندگی گزاری، سنہ 9ھ کو مسلمان ہوئے، کچھ حدیثیں بھی روایت کیں، شراب پینے کے عادی تھے، لہذا عمر فاروق -رضی اللہ عنہ- نے ان پر کئی بار حد جاری کی، بعد ازاں انہیں سمندر کے ایک جزیرے میں جلا وطن کر دیا، چنانچہ وہ بھاگ کھڑے ہوئے اور سعد بن ابو وقاص کے پاس چلے گئے، جوقادسیہ میں فارسیوں سے جنگ کر رہے تھے۔ عمر فاروق -رضی اللہ عنہ- نے ان کو لکھ بھیجا کہ ان کو قید کر لیں۔ لہذا سعد -رضی اللہ عنہ- نے حکم کی تعمیل کرتے ہوئے ان کو اپنے پاس قید کرکے رکھ لیا، قادسیہ کی جنگ کے دوران ایک دن جب بڑی سخت لڑائی ہونے لگی، تو ابو محجن نے سعد کی بیوی سلمی سے ان کو کھول دینے کی گزارش کی اور وعدہ کیا کہ اگر بچ گئے تو دوبارہ قید میں واپس آ جائیں گے، اس تعلق سے کچھ اشعار بھی پڑھنے لگے، چنانچہ سلمی نے ان کو چھوڑ دیا، تو بڑی شان دار لڑائی لڑی۔ پھر جنگ ختم ہوئی تو دوبارہ قید خانے میں واپس آ گئے، جب سلمی نے یہ باتیں سعد کے سامنے رکھیں تو انھوں نے ان کو چھوڑ دیا اور کہا کہ میں تم پر کبھی حد جاری نہيں کروں گا، اس سے متاثر ہوکر ابو محجن نے بھی کہا کہ اللہ کی قسم! آج کے بعد میں کبھی شراب نہیں پیوں گا، چنانچہ انھوں نے اس کے بعد پھر کبھی شراب نہيں پی، آذربائیجان یا جرجان میں سنہ 30 میں وفات پائی۔
বাংলা ভাষা আবূ মিহজান আমর ইবন হাবীব ইবন আমর ইবন উমায়ের ইবন আউফ আস-সাকাফী। তিনি একজন সম্মানিত সাহাবী ছিলেন। তিনি ইসলাম ও জাহেলী যুগে সাহসী, কবি ও সম্মানিতদের অন্যতম ছিলেন। তিনি ৯ হিজরীতে ইসলাম গ্রহণ করেন। বেশ কিছু হাদীস তিনি বর্ণনা করেছেন। তিনি মাঝে মাঝে মদ পান করে ফেলতেন। উমার তাকে একাধিকবার হদ্দ প্রয়োগ করে শাস্তি দিয়েছেন। তারপরে তাকে কোন একটি সামুদ্রিক দ্বীপে নির্বাসনে পাঠানো হলে তিনি সেখান থেকে পলায়ন করেন। এরপরে তিনি সা‘দ ইবন আবী ওয়াক্কাসের সাথে মিলিত হন, যখন সা‘দ পারস্য সাম্রাজ্যের সাথে যুদ্ধ করছিলেন। উমার তাকে বন্দী করার নির্দেশ দিলে সা‘দ তাকে তার কাছে বন্দী করে নেন। এমন একদিনে কাদেসিয়াতে প্রচণ্ড রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ শুরু হয়। তখন আবূ মিহজান সা‘দের স্ত্রী সালমার কাছে তার কয়েদ খুলে দেওয়ার জন্য বলেন এবং তাকে এই ওয়াদা দেন যে, যদি তিনি সুস্থ থাকেন তবে তিনি সেখানে ফিরে আসবেন। এবং এ ব্যাপারে তিনি বেশ কয়েকটি পংক্তি আবৃত্তি করেন। তখন তিনি তার কয়েদ খুলে দেন। সেদিন তিনি এক আশ্চর্যজনকভাবে লড়াই করেন। যুদ্ধ শেষ হওয়ার পরে তিনি উক্ত কয়েদ ও বন্দীদশায় ফিরে আসেন। তখন সা‘দকে সালমা সকল কথা খুলে বললে, সা‘দ তাকে মুক্ত করে দেন এবং তাকে বলেন: আমি কখনোই আপনার উপরে হদ্দ প্রয়োগ করব না। তখন আবূ মিহজান বললেন: আর আমিও আল্লাহর কসম, আর কোনোদিন মদ পান করব না। এরপরে তিনি আর কখনোই মদ পান করেননি। তিনি ৩০ হিজরীতে আজারবাইজান অথবা জুরজান নামক স্থানে মৃত্যুবরণ করেন।
हिन्दी अबू मिहजन अम्र बिन हबीब बिन अम्र बिन उमैर बिन औफ़ सक़फ़ी एक बड़े सहाबी हैं। अज्ञानता काल (जाहिलीयत ) तथा इस्लाम युग के बहादुर एवं दानशील शायरों में से एक हैं। 9 हिजरी में मुसलमान हुए। कुछेक हदीसें रिवायत कीं। शरबा के बड़े रसिया थे। अतः उमर -रज़ियल्लाहु अन्हु- ने उनको कई बार शरई दंड दिया और फिर देश से निकाल कर समुद्र के एक टापू की ओर भेज दिया, जहाँ से भाग खड़े हुए और साद बिन अबू वक़्क़ास के पास पहुँच गए, जो क़ादसिया में फ़ारसियों से युद्ध लड़ रहे थे। उमर -रज़ियल्लाहु अन्हु- ने साद -रज़ियल्लाहु अन्हु- को पत्र लिखकर उनको क़ैद कर लेने को कहा, तो उन्होंने उनको क़ैद कर लिया। इसी बीच जब एक दिन भीषण युद्ध होने लगी, तो अबू मिहजन ने साद की पत्नी सलमा से विनती की कि उनके बंधन खोल दें, साथ ही वादा भी किया कि यदि बच गए, तो दोबारा ख़ुद ही क़ैद में वापस लौट आएँगे। इस संदर्भ में कुछ शेर भी सुनाए। अतः सलमा ने उनको जाने दिया और वह बड़ी बहादुरी से लड़े। युद्ध समाप्त हुआ, तो दाबारा ख़ुद से आकर क़ैद हो गए। जब सलमा ने यह सारी बातें साद को बताईं, तो उनको आज़ाद कर दिया और कहा कि मैं तुम्हें कभी दंड नहीं दूँगा। अबू मिहजन ने भी कहा कि अल्लाह की क़सम मैं कभी शराब को हाथ नहीं लगाऊँगा। फिर उन्होंने अपना किया हुआ वादा पूरा करके दिखाया भी। अज़रबैजान या जुरजान में 30 हिजरी में मृत्यु को प्राप्त हुए।
తెలుగు అమ్ర్ బిన్ హబీబ్ బిన్ అమ్ర్ బిన్ ఉమైర్ బిన్ ఔఫ్ అబూమిహ్జన్ అస్సఖఫీ ఒక గొప్ప సహాబీ. ఇతను అజ్ఞాన కాలం(జాహిలియత్) మరియు ఇస్లాం యుగంలో ధైర్యసహాసాలు మరియు దాతగుణ కవులలో ఒకరు.9వహిజ్రీలో ఇస్లాం స్వీకరించారు. హదీసులు కూడా ఉల్లేఖించారు. అతను మద్యపాన ప్రియుడు. కాబట్టి ఉమర్ రజియల్లాహు అన్హు అతన్ని అనేకసార్లు శిక్షించి, దేశం నుండి సముద్రంలోని ఒక ద్వీపానికి బహిష్కరించారు. అతను అక్కడ నుండి పారిపోయి ఖాదిసియాలో పర్షియన్లతో పోరాడుతున్న సాద్ బిన్ అబీ వఖ్ఖాస్ వద్దకు చేరుకున్నారు. ఉమర్ రజియల్లాహు అన్హు సాద్ రజియల్లాహు అన్హుకు అతనిని జైలులో బంధించమని కోరుతూ ఒక లేఖ వ్రాసారు అప్పుడు అతను అతనిని జైలులో పెట్టారు. ఒక రోజు ఖాదిసీయా భీకర యుద్ధం జరిగుతున్నప్పుడు అబూ మిహ్జన్ సాద్ భార్య సల్మా ను తనను విడుదల చేయమని వేడుకున్నాడు అంతేకాదు ఒకవేళ ప్రాణాలతో బయటపడితే ఆ జైలుకు తిరిగి వస్తారని కూడా వాగ్దానం చేశారు. ఈ సందర్భంలో కొన్నికవితా పద్యాలను పాడారు. దాంతో సల్మా అతడిని విడిచిపెట్టింది. అతను అప్పుడు ధైర్యంగా పోరాడాడు. యుద్ధం ముగియడంతో మళ్లీ తమంతట తానుగా వచ్చి జైలు పాలయ్యారు. సల్మా ఈ విషయాలన్నీ సాద్కి చెప్పగా ఆయన అతనిని విడుదల చేశారు మరియు అతనితో ఇలా అన్నారు:"నేను నిన్ను ఎప్పటికీ శిక్షించను". దానికి అబూమిహ్జాన్ ఇలా అన్నారు: అల్లాహ్ సాక్షిగా నేను మద్యం ముట్టుకోను. ఆ తరువాత తన వాగ్దానాన్ని అతని నెరవేర్చి చూపించారు. అతను 30 హిజ్రీ సంవత్సరంలో ఆజర్బైజాన్ లేదా జుర్జాన్లో మరణించారు.

كتاب التوابين لابن قدامة (ص: 84)، أسد الغابة (6/271)، الأعلام للزركلي (5/76).