Category: Persons .

أم كلثوم بنت نبينا محمد بن عبد الله القرشية الهاشمية

English Umm Kulthūm, daughter of our Prophet Muhammad, al-Qurashiyyah al-Hāshimiyyah
اردو ام کلثوم بنت محمد بن عبداللہ قرشیہ ہاشمیہ
বাংলা ভাষা উম্মু কালসূম আল-কুরাইশিয়্যাহ আল-হাশিমিয়্যাহ, আমাদের নবী মুহাম্মাদ ইবন আব্দুল্লাহর কন্যা
हिन्दी हमारे नबी मुहम्मद बिन अब्दुल्लाह -सल्लल्लाहु अलैहि व सल्लम- की बेटी उम्म-ए-कुलसूम क़ुरशिया हाशिमिया।
తెలుగు ఉమ్మే కుల్సూమ్ బింతే మన దైవప్రవక్త ముహమ్మద్ బిన్ అబ్దుల్లాహ్ అల్ ఖురషియ్య అల్ హాషిమి సల్లల్లాహు అలైహివ సల్లం.

أُمُّ كُلْثُوم -رضي الله عنها-

English Umm Kulthūm (may Allah be pleased with her)
اردو ام کلثوم -رضی اللہ عنہا-
বাংলা ভাষা উম্মু কালসূম রাদিয়াল্লাহু ‘আনহা
हिन्दी उम्म-ए- कुलसूम -रज़ियल्लाहु अन्हा-
తెలుగు ఉమ్మే కుల్సూమ్ రజియల్లాహు అన్హా.

أم كلثوم بنت المصطفى نبينا محمد بن عبد الله بن عبد المطلب -صلى الله عليه وسلم- القرشية الهاشمية، وأمها خديجة بنت خويلد، تزوجها عتيبة بن أبي لهب قبل البعثة، فلما بعث رسول الله -صلى الله عليه وسلم-، وأنزل الله {تَبَّتْ يَدَا أَبِي لَهَبٍ} قال له أبوه أبو لهب: رأسي من رأسك حرام إلم تُطلق ابنته، ففارقها ولم يكن دخل بها، فلم تزل بمكة مع أبيها -صلى الله عليه وسلم- وأسلمت حين أسلمت أمها، وبايعت رسول الله مع أخواتها حين بايعه النساء وهاجرت إلى المدينة، فلم تزل بها، ولما توفيت رقية بنت رسول الله -صلى الله عليه وسلم- زوجها رسول الله -صلى الله عليه وسلم- عثمان بن عفان، وكان ذلك شهر ربيع الأول سنة ثلاث من الهجرة، وأدخلت عليه في هذه السنة في جمادى الآخرة، فلم تزل عنده إلى أن ماتت ولم تلد له شيئًا عام 9.

English She is Umm Kulthūm bint Muhammad, our chosen Prophet, ibn ‘Abdullah ibn ‘Abd al-Muttalib (may Allah's peace and blessings be upon him), al-Qurashiyyah al-Hāshimiyyah. Her mother was Khadījah bint Khuwaylid. Before Bi‘thah (start of the Prophet's mission), she was married to ‘Utaybah ibn Abi Lahab. After Bi‘thah and after the revelation of {May the hands of Abu Lahab perish}, Abu Lahab said to his son ‘Utaybah: "I will have nothing to do with you if you do not divorce his daughter", so he divorced her before consummating the marriage with her. She remained in Makkah with her father (may Allah's peace and blessings be upon him) and embraced Islam when her mother did. She pledged allegiance to the Prophet with her sisters when the women pledged allegiance to him. She emigrated to Madīnah and remained there. When her sister Ruqayyah died, the Prophet (may Allah's peace and blessings be upon him) married her to ‘Uthmān ibn ‘Affān in Rabī‘ al-Awwal of the third year of Hijrah. He consummated the marriage with her in Jumāda al-Ākhirah of the same year, and she remained married to him, and did not give birth to any children for him, until she died in 9 AH.
اردو ام کلثوم بنت محمد بن عبداللہ بن عبدالمطلب قرشیہ ہاشمیہ۔ ان کی ماں خدیجہ بنت خویلد تھیں، ان سے عتیبہ بن ابولہب نے بعثت سے پہلے شادی کی تھی، جب اللہ کے رسول -صلی اللہ علیہ و سلم- کی بعثت ہوئی اور اللہ نے {تَبَّتْ يَدَا أَبِي لَهَبٍ} اتاری تو عتیبہ سے اس کے باپ ابو لہب نے کہا : اگر تم نے محمد کی بیٹی کو طلاق نہیں دی تو ہمارا آمنا سامنا حرام ہے،چنانچہ عتیبہ نے ان کو الگ کر دیا، حالاںکہ ابھی تک اس نے ام کلثوم کے ساتھ ازدواجی تعلقات قائم نہیں کيے تھے۔ اس کے بعد وہ اپنے ابا حضور کے ساتھ مکے ہی میں رہیں، وہ اپنی والدہ کے ساتھ مسلمان ہو چکی تھیں اور اپنی بہنوں کے ساتھ اللہ کے رسول -صلی اللہ علیہ سلم- کے ہاتھ پر اس وقت بیعت کر چکی تھیں جب دیگر عورتوں نے بیعت کی تھی، بعد میں ہجرت کرکے مدینہ چلی گئیں اور وہیں رہیں، جب اللہ کے رسول صلی اللہ علیہ و سلم- کی بیٹی رقیہ کا انتقال ہو گیا، تو آپ نے ان کا نکاح عثمان بن عفان -رضی اللہ عنہ- سے کر دیا، یہ ربیع الاول سنہ 3ھ کی بات ہے، اسی سال جمادی الآخرۃ میں رخصتی بھی ہو گئی، انہی کی زوجیت میں تھیں کہ سنہ 9ھ میں انتقال ہو گیا،ان کو کوئی اولاد نہ ہوئی۔
বাংলা ভাষা উম্মু কালসূম আল-কুরাইশিয়্যাহ আল-হাশিমিয়্যাহ, তিনি আমাদের নবী মুস্তাফা মুহাম্মাদ -সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম- ইবন আব্দুল্লাহ ইবন আব্দুল মুত্তালিবের কন্যা। তার মাতার নাম: খাদীজাহ বিনত খুওয়াইলিদ। তাকে নবুওয়তের আগে আবু লাহাবের পুত্র উতাইবাহ বিবাহ করেছিল, যখন আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নবুওয়তপ্রাপ্ত হলেন, আর {تَبَّتْ يَدَا أَبِي لَهَبٍ} যার অর্থ: “আবূ লাহাবের দুইহাত ধংস হোক!” নাযিল হল, তখন উতাইবাহর পিতা আবূ লাহাব তাকে বলল: তোমার মাথা থেকে আমার মাথা (সম্পর্ক) হারাম হয়ে যাবে, যদি তুমি তার (নবী মুহাম্মাদ) কন্যাকে তালাক না দাও। তখন উতাইবাহ তাকে আলাদা করে দেয়, তাদের মধ্যে কোন দাম্পত্য সম্পর্ক (সহবাস) হয়নি। উম্মু কালসূম তারপরে তার পিতা -মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম- এবং মাতা খাদীজাহর সাথে মক্কাতেই বসবাস করতে থাকেন। তিনি তার মায়ের সাথে ইসলাম গ্রহণ করেন। আল্লাহর রাসূল যখন নারীদের কাছ থেকে বাই‘আত গ্রহণ করেন, তখন তিনিও বাই‘আত হন। এরপরে তিনি মদীনাতে হিজরত করেন। যখন আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কন্যা রুকাইয়া মারা যান, তখন আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাকে উসমানের সাথে বিবাহ দেন। এটি হিজরতের তৃতীয় বছরের রবী‘ঊল আউয়াল মাসে ঘটেছিল। একই বছরের জুমাদিঊল আখিরাতে তিনি তার গৃহে প্রবেশ করেন। নবম হিজরীতে তার মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি উসমানের কাছেই ছিলেন। তিনি তার কোনো সন্তান জন্ম দেননি।
हिन्दी उम्म-ए-कुलसूम बिन्त मुहम्मद बिन अब्दुल्लाह बिन अब्द अल-मुत्तलिब क़ुरशिया हाशिमिया। उनकी माता ख़दीजा बिन्त खुवैलिद हैं। उनसे उतैबा बिन अबू लहब ने अल्लाह के रसूल -सल्लल्लाहु अलैहि व सल्लम- के नबी बनने से पहले निकाह किया था । जब आप नबी बन गए और अल्लाह ने सूरा लहब उतारी, तो उतैबा से उसके पिता अबू लहब ने कहा कि अगर तुम मुहम्मद की पुत्री को तलाक़ नहीं देते हो, तो हमारा संबंध छिन्न-भिन्न हो जाएगा। अतः उसने तलाक दे दी।परंतु उस समय तक उअनकी रुखसती नहीं हुई थी। इसके बाद मक्का में अपने पिता के साथ रहने लगीं। अपनी माता के साथ मुसलमान हुईं। जब स्त्रियों ने आपसे बैअत की, तो उन्होंने भी अपनी बहनों के साथ बैअत की और हिजरत करके मदीना आ गईं। फिर यहीं रहने लगीं। जब अल्लाह के नबी -सल्लल्लाहु अलैहि व सल्लम- की बेटी रुक़य्या -रज़ियल्लाहु अन्हा- की मृत्यु हो गई, तो आपने उसमान बिन अफ़्फ़ान से उनका निकाह कर दिया। यह रबी अल-अव्वल 3 हिजरी की बात है। इसी साल जुमादा अल-आख़िरह में उनकी रुख़सती भी हो गई। उनके निकाह में ही थीं कि 9 हिजरी में उनकी मृत्यु हो गई। उसमान -रज़ियल्लाहु अन्हु- से उनको कोई संतान नहीं थी।
తెలుగు ఉమ్మే కుల్సూమ్ బింతే ముహమ్మద్ బిన్ అబ్దుల్లా బిన్ అబ్దుల్'ముత్తలిబ్ ఖుర్షియా హాషిమియా. ఆమె తల్లిపేరు ఖదీజా బింతే ఖువైలిద్.ప్రవక్త సల్లల్లాహు అలైహి వసల్లం దైవదౌత్యానికి ముందు ఉతైబా బిన్ అబూ లహబ్'ను ఆమె వివాహం చేసుకున్నారు. ప్రవక్తకు దైవదౌత్యం లభించి అల్లాహ్ సూరే లహబ్ను వెల్లడించినప్పుడు అతని తండ్రి అబూలహబ్ ఉతైబాతో:నువ్వు ఒకవేళ ముహమ్మద్ కుమార్తెకు విడాకులు ఇవ్వకపోతే మన మధ్య సంబంధం తెగిపోతుంది అని చెప్పాడు. దాంతో ఆమెకు విడాకులు ఇచ్చాడు, కానీ అప్పటికి ఇంకా ఆమె కాపురానికి వెళ్లలేదు. దీని తరువాత ఆమె తన తండ్రి సల్లల్లాహు అలైహి వసల్లంతో మక్కాలో నివసించడం ప్రారంభించారు. ఆమె తన తల్లి ఇస్లాం స్వీకరించినప్పుడే ముస్లిం అయింది. స్త్రీలు ప్రవక్తతో బైఅత్ చేసినప్పుడు ఆమె కూడా తమ సోదరీమణులతో బైఅత్ చేసి, హిజ్రత్ చేసి మదీనాకు వచ్చారు. అప్పుడు ఆమె ఇక్కడ నివసించడం ప్రారంభించారు. దైవప్రవక్త సల్లల్లాహు అలైహి వసల్లం రుఖియా రజియల్లాహు అన్హా మరణించినప్పుడు, దైవప్రవక్త ఆమెను ఉస్మాన్ బిన్ అఫ్ఫాన్ తో వివాహం జరిపించారు. ఇది రబీఉల్ అవ్వల్ 3 హిజ్రీకి సంబంధించిన విషయం. అదే సంవత్సరంలో జమాదిల్అఖిరాలో ఆమె కాపురానికి వెళ్ళింది .మరణం వరకు ఆయన వివాహంలోనే ఆమె జీవించింది. హిజ్రీ 9వ సంవత్సరంలో మరణించింది. ఆమెకు ఉస్మాన్ నుండి సంతానం కలుగలేదు.

الطبقات الكبرى (8/30)، معرفة الصحابة لأبي نعيم (6/3198)، أسد الغابة في معرفة الصحابة (7/374)، الأعلام للزركلي (5/231).