Category: Persons .

سعيد بن المسيب بن حزن

English Sa‘īd ibn al-Musayyib ibn Hazn
اردو سعید بن مسیب بن حزن
বাংলা ভাষা সা‘ঈদ ইবনুল মুসাইয়্যাব ইবন হুযন
हिन्दी सईद बिन मुसय्यिब बिन हज़्न
తెలుగు సయీద్ బిన్ అల్ ముసయ్యిబ్ బిన్ హజ్న్.

سعيد بن المسيب -رحمه الله-

English Sa‘īd ibn al-Musayyib (may Allah have mercy upon him)
اردو سعید بن مسیب -رحمہ اللہ-
বাংলা ভাষা সা‘ঈদ ইবনুল মুসাইয়াব রাহিমাহুল্লাহ
हिन्दी सईद बिन मुसय्यिब -रह़िमहुल्लाह-
తెలుగు సయీద్ బిన్ అల్ ముసయ్యిబ్ రహిమహుల్లాహ్

أبو محمد سعيد بن المسيب بن حزن القرشي المخزومي، الإمام العلم، تابعي كبير، ولد عام 13، عالم أهل المدينة وسيد التابعين في زمانه، قال: (ما فاتتني الصلاة في جماعة منذ أربعين سنة)، وقال: (ما أحد أعلم بقضاء قضاه رسول الله -صلى الله عليه وسلم- ولا أبو بكر، ولا عمر مني)، كان المقدَّم في الفتوى في دهره ويقال له فقيه الفقهاء، ومن كلامه : (ما أيس الشيطان من شيء إلا أتاه من قبل النساء)، توفي عام 93 أو 94.

English He is Abu Muhammad Sa‘īd ibn al-Musayyib ibn Hazn al-Qurashi al-Makhzūmi. He was an eminent Imam and a prominent Tābi‘i (a Muslim who met a Companion of the Prophet and died as a Muslim). He was born in 13 AH and was the scholar of the people of Madīnah and the master of the Tābi‘is at his time. He said: "I have never missed the prayer in congregation for forty years." He also said: "No one knows a judgment passed by the Messenger of Allah (may Allah's peace and blessings be upon him), or by Abu Bakr, or by ‘Umar better than me." During his lifetime, he was given precedence in issuing Fatwa and was called 'Faqīh al-Fuqahā’' (the most knowledgeable of the scholars of Fiqh). He also said: "The devil never despairs of anything except that he overcomes it by means of women." He died in 93 or 94 AH.
اردو ابو محمد سعید بن مسیب بن حزن قرشی مخزومی ایک بڑے عالم اور سرکردہ شخصیت کے مالک انسان اور بڑے تابعی ہیں، سنہ 13ھ کو پیدا ہوئے، مدینہ والوں کے عالم اور اپنے زمانے میں تابعین کے سردار تھے،وہ کہتے ہيں : "چالیس سال سے میری باجماعت نماز نہيں چھوٹی۔" مزید کہتے ہيں : "میں کسی ایسے شخص کو نہيں جانتا جو اللہ کے رسول -صلی اللہ علیہ و سلم، ابو بکر اور عمر (رضی اللہ عنہ) کے ذریعے کیے گئے کسی بھی فیصلے کی جانکاری مجھ سے زیادہ رکھتا ہو۔" اپنے زمانے میں فتوی کے باب میں سرفہرست تھے، ان کو فقیہ الفقھاء کہا جاتا تھا، ان کا ایک قول ہے : "شیطان جس چیز سے بھی مایوس ہوا اسے وہ عورتوں کی جانب سے ملی۔" سنہ 93ھ یا 94ھ میں وفات پائی۔
বাংলা ভাষা আবূ মুহাম্মাদ সা‘ঈদ ইবনুল মুসাইয়্যাব ইবন হাযান আল-কুরাইশী আল-মাখযূমী। ইমাম ও জ্ঞানের প্রতীক, বড় তাবেয়ীদের একজন। তিনি ১৩ হিজরীতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি আহলে মদীনার আলিম ছিলেন এবং তার যামানাতে তিনি তাবেয়ীদের সর্দার ছিলেন। তিনি বলেছেন: “চল্লিশ বছরে আমার কোন সালাতের জামা‘আত ছুটে যায়নি।” তিনি আরো বলেছেন: “আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যে বিচার-ফয়সালা করেছেন, সে ব্যাপারে আমার থেকে কেউ বেশী জানে না, এমনকি আবু বকরও নয় এবং উমারও নয়।” তিনি তার সময়ে ফাতওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রসর (প্রাধান্যপ্রাপ্ত) ব্যক্তিত্ব ছিলেন। তাকে বলা হত: ফকীহুল ফুকাহা (ফকীহদের ফকীহ)। তার বিখ্যাত উক্তির মধ্যে রয়েছে: “শয়তান যখনই কোন বিষয় থেকে নিরাশ হয়, তখনই সেখানে সে নারীদের বেশে (পক্ষ হতে) উপস্থিত হয়।” তিনি ৯৩ অথবা ৯৪ হিজরীতে মারা যান।
हिन्दी अबू मुहम्मद सईद बिन मुसय्यिब बिन हज़्न क़ुरशी मख़ूज़ूमी एक बड़े ताबेई हैं। सन् 13 हिजरी में पैदा हुए। मदीने वालों के आलिम और अपने युग में ताबेईगण के सरदार। वह कहते हैं : "चालीस वर्षों से मेरी जमात की नमाज़ नहीं छूटी।" उनका कहना है : (मेरी जानकारी में कोई ऐसा व्यक्ति नहीं है, जो अल्लाह के रसूल -सल्लल्लाहु अलैहि व सल्लम- द्वारा दिए गए निर्णयों के बारे में मुझ से अधिक अवगत हो। अबू बक्र एवं उमर भी नहीं।) फ़तवा के मामले वह अपने युग में अग्रणीय थे। उनको फ़क़ीह अल-फ़ुक़हा कहा जाता है। वह कहा करते थे : (शैतान जिस चीज़ से मायूस होता है, उसे वह स्त्रियों की ओर से मिल जाती है।) सन् 93 या 94 हिजरी में मृत्यु को प्राप्त हुए।
తెలుగు అబూ ముహమ్మద్ సయీద్ బిన్ ముసయ్యిబ్ బిన్ హజ్న్ అల్ ఖుర్షీ మఖుజూమీ.ఈయన విజ్ఞుడైన ఇమామ్ మరియు గొప్ప తాబయి. హిజ్రీ 13లో జన్మించారు. మదీనా వాసులకు ఆలిమ్ మరియు ఆ యుగపు తాబియీనులకు సర్దారు. ఆయన ఇలా అన్నారు:"నలభై సంవత్సరాలుగా నా జమాఅతు నమాజులు తప్పిపోలేదు." అతను ఇలా అన్నారు: (దైవప్రవక్త సల్లల్లాహు అలైహి వసల్లం ఇచ్చిన తీర్పుల గురించి నా కంటే ఎక్కువగా అవగాహన కలిగిన వ్యక్తి ఎవరూ లేరని నాకు తెలుసు. అబూ బకర్ మరియు ఉమర్ కూడా లేరు) ఫత్వాల విషయంలో ఆ యుగంలో ఆయనే అగ్రణీయుడు.ఆయనను ఫఖీహుల్-ఫుఖహా అని పిలుస్తారు. ఆయన అనేవారు: (షైతాను ఏ విషయంలో నిరాశ చెందుతాడో అతనికి అది స్త్రీల ద్వారా లభిస్తుంది.) ఆయన హిజ్రీ 93 లేదా 94 వ సంవత్సరంలో మరణించారు.

الطبقات الكبرى (5/ 89) التاريخ الأوسط (1/ 216) التاريخ الكبير للبخاري (3/ 510) الكنى والأسماء للإمام مسلم (2/ 719) الثقات لابن حبان (4/ 273) مشاهير علماء الأمصار (ص: 105) الأعلام للزركلي(3/ 102)